শনিবার, অক্টোবর ২৩, ২০২১
সর্বশেষঃ
*মেক্সিকোতে মাদকচক্রের দুই পক্ষের গোলাগুলিতে নিহত দুই পর্যটক*কিমকে চিঠি দিলেন চিনপিং, সম্পর্ক জোরদারের প্রতিশ্রুতি*নতুন বাজারের সন্ধান করতে হবে বিদেশে*যেকোনো অর্জন-সাফল্যকে বিতর্কিত করা বিএনপির স্বভাব – ওবায়দুল কাদের*পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে ক্লাসের সংখ্যা বাড়বে – শিক্ষামন্ত্রী*মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে বিপুল সৈন্য সমাবেশ মানবাধিকার বিপর্যয়ের আশঙ্কা জাতিসংঘের*ব্যক্তিগত দ্বন্দ্ব থেকে পীরগঞ্জের হামলা ও অগ্নিসংযোগের সূত্রপাত – র‍্যাব*দেশে কোনো ধর্মের-বর্ণের মানুষের মধ্যে পার্থক্য করা হয় না – পররাষ্ট্রমন্ত্রী*রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হামলায় নিহতের ঘটনায় আটক ৮*সেই বিমান ছিনতাইচেষ্টা নিয়ে সিনেমা নায়িকা ববি

চট্টগ্রামের ইটভাটা মালিক সমিতির ছয়জনকে আদালত অবমাননা নোটিশ

চট্টগ্রামের সকল অবৈধ ইটভাটা বন্ধে হাইকোর্টের নির্দেশ থাকার পরও ওই আদেশ বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির অভিযোগে চট্টগ্রামের ইটভাটা মালিক সমিতির ছয়জনকে আইনি নোটিশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মনজিল মোরশেদ। মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে রবিবার এ নোটিশ দেওয়া হয়েছে। আবেদনে বলা হয়েছে, হাইকোর্টের রায়ের পর তা প্রত্যাহারের দাবিতে ইট বিক্রি বন্ধ রাখাসহ যেসব কর্মসূচি গ্রহণ করা হচ্ছে তা আদালত অবমাননার শামিল। তাই নোটিশ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ওইসব কর্মসুচি প্রত্যাহার না করলে আদালত অবমাননার আবেদন করা হবে বলে নোটিশে বলা হয়েছে। যাদের প্রতি নোটিশ দেওয়া হয়েছে তারা হলেন- চট্টগ্রাম জেলা ইটভাটা মালিক সমিতির আহ্বায়ক ইসমাইল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সেকান্দর মিয়া, লোহাগড়া ব্রিকফিল্ড মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও আলহাজ ছরওয়ার কম্পানির প্রেসিডেন্ট আলহাজ আবিদ হাসান মানু, পঞ্চিম সাতকানিয়া ইটভাটা মালিক সমিতি প্রেসিডেন্ট শাহ আলম (লেদু চেয়ারম্যান) ও সেক্রেটারি মো. হাসান লিটন কমিশনার। চট্টগ্রামের সকল অবৈধ ইটভাটা বন্ধ ও উচ্ছেদের জন্য গতবছর ১৪ ডিসেম্বর, চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি ও ২৫ ফেব্রুয়ারি আদেশ দেন হাইকোর্ট। চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালকের প্রতি এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আগামী ১৪ মার্চ পরবর্তী আদেশের জন্য দিন ধার্য রয়েছে। এর মধ্যে প্রথমদফায় গত বছর ১৪ ডিসেম্বর আদেশ দেওয়ার পর হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে ১০১ জন ইটভাটার মালিক ৬টি আপিল দাখিল করেন। এ আবেদনে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চাওয়া হয়। কিন্তু আপিল বিভাগ কোনো স্থগিতাদেশ দেননি। এরপর চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি ও ২৫ ফেব্রুয়ারি আরো দুই দফা আদেশ দেন হাইকোর্ট। প্রশাসন যাতে কোনো পদক্ষেপ নিতে না পারে সেজন্য ইটভাটা মালিক সমিতি বিভিন্নভাবে চাপ সৃষ্টি করছে এবং আদেশ বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বিভিন্ন কর্মসুচি গ্রহন করছে। যা আদালত অবমাননার শামিল এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles