শুক্রবার, ডিসেম্বর ২, ২০২২

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির জন্য বাণিজ্যমন্ত্রীর সমালোচনা করছেন বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি মঙ্গলবার সংসদে বিরোধী আইন প্রণেতাদের সমালোচনার মুখে পড়েন যা তারা বলেছিল যে তারা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ঊর্ধ্বগতি মূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়েছে। ট্রেড অর্গানাইজেশন বিল ২০২২-এর উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে জাতীয় পার্টি এবং বিএনপির সদস্যরাও নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থতার জন্য সরকারকে দোষারোপ করেছেন। তারা বলেন, বাণিজ্যমন্ত্রী অভিজ্ঞ ব্যবসায়ী হলেও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের কারসাজিকারী সিন্ডিকেটকে নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়েছেন। টিপু মুনশি অবশ্য সংসদকে বলেন, সরকার কোথাও ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে না, বরং ব্যবসায়ীদের সহায়তা করে। সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণে সরকারের ব্যর্থতার বিষয়ে সংসদ সদস্যদের অভিযোগের প্রতি ইঙ্গিত করে মন্ত্রী বলেন, যারা সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত, তারা রাজনীতিতে নেই এবং তারা এমপিও নয়। “সরকার চেষ্টা করছে, প্রধানমন্ত্রী ক্রমাগত বিষয়টি অনুসরণ করছেন,” তিনি আরও বলেন। একজন হতাশ বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সংসদে সব সময় সংসদ সদস্যরা তাদের বক্তৃতায় তাকে ব্যবসায়ী বলে থাকেন। “আমি ৪০ বছর ধরে ব্যবসা করছি। কিন্তু আমি গত ৫৬ বছর ধরে রাজনীতি করছি। ব্যবসায়ী হওয়া কি আমার দোষ” তিনি প্রশ্ন করেন। এর আগে বিলের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে জাপা সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, প্রস্তাবিত আইনটি সংসদে পাস হয়েছে সিন্ডিকেটের স্বার্থে। “সরকার সিন্ডিকেটকে উৎসাহিত করছে। কিন্তু নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয়েছে।” আরেক জাপা সাংসদ পীর ফজলুর রহমান বিস্ময় প্রকাশ করেছেন কেন বাণিজ্যমন্ত্রী ও তার মন্ত্রণালয় নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়াতে সিন্ডিকেটকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না।

তিনি বলেছেন- “তোমাকে সত্য মেনে নিতে হবে। তেলের দাম বাড়িয়ে হাজার হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে সিন্ডিকেট। কিন্তু মন্ত্রী কোনো ব্যবস্থা নিতে পারেননি।” জাপা এমপি বলেন, ভ্যাট কমিয়ে মন্ত্রী যতই দাম কমানোর চেষ্টা করুক না কেন, বাস্তবে বাজারে নিত্যপণ্যের দাম তেমন একটা কমেনি। তিনি বলেন, মঙ্গলবার পত্রিকায় খবর এসেছে যে, মন্ত্রী রান্নাঘরের বাজারে গিয়ে ২৮ টাকা কেজি দরে ৫ কেজি পেঁয়াজ কিনেছেন। “মন্ত্রী যদি আগে থেকে ঘোষণা দিয়ে বাজারে যেতেন, তাহলে মানুষও মন্ত্রীর মতো বাজারে গিয়ে কম দামে জিনিসপত্র কিনত।” সরকারের ওপর কড়া সমালোচনা করে জাপা এমপি মুজিবুল হক চুন্নু অভিযোগ করেন, মূল্যবৃদ্ধির কারণে সাধারণ মানুষ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তিনি বলেন, সরকারের সহযোগিতা ছাড়া সিন্ডিকেট দাম বাড়াতে পারে না। “সরকার মূল্যবৃদ্ধির পেছনে যুদ্ধকে (রাশিয়া-ইউক্রেন) দায়ী করছে। সেক্ষেত্রে আমদানি পণ্যের দাম বাড়তে পারে। কিন্তু যুদ্ধের আগে আমদানি করা এবং দেশীয়ভাবে উৎপাদিত পণ্যের দাম কেন বাড়বে।” সরকার ভর্তুকি দিলেও নিত্যপণ্যের দাম কমানোর দাবি জানান তিনি। জাপা এমপি শামীম হায়দার পাটোয়ারী বলেন, শ্রীমঙ্গলে ২ টাকা দামের লেবু ঢাকায় ২২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ফের লড়াই করতে হবে বাণিজ্যমন্ত্রীকে। “মূল্য বৃদ্ধির কারণে মানুষ খাদ্যের মান ও পুষ্টির সাথে আপস করতে বাধ্য হচ্ছে।”

নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে সরকারকে লড়াইয়ে নামতে হবে। বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ বলেছেন, গ্যাস সংকটে ঢাকায় ভোগান্তিতে পড়ছেন গ্রাহকরা। গ্যাস, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় প্রায় সব পণ্যের দাম বেড়েছে। তিনি বলেন, জনপ্রতিনিধি হয়ে ব্যবসায়ীরা সম্পদের পাহাড় গড়ছেন কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। মূল্যবৃদ্ধির জন্য বিএনপিকে অপ্রাসঙ্গিকভাবে দায়ী না করে সরকারকে দৃশ্যমান পদক্ষেপ নিতে হবে। সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানা বলেছেন, তেলের মূল্যবৃদ্ধি গ্রাহকদের ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে। ১৫ দিনে এক হাজার কোটি টাকা লুট করেছে সিন্ডিকেট। এই সিন্ডিকেট সরকার ছাড়া কেউ নয়। সরকার ও সিন্ডিকেটের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। সরকারকে বিস্ফোরিত করে, বিএনপির আরেক সংসদ সদস্য মোঃ মোশাররফ হোসেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে জানতে চান, তিনি কি কখনো মানুষের দুর্ভোগের বিষয়ে প্রথম হাতের অভিজ্ঞতা পেতে বাজারে গিয়েছিলেন কি না। গণফোরামের সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান বলেছেন, যুদ্ধকে পণ্যের দাম বাড়ানোর অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করা উচিত নয়। যুদ্ধ শুরুর আগে সিন্ডিকেট দাম বাড়িয়ে জনগণের পকেট থেকে টাকা লুট করে। তেলের মূল্যবৃদ্ধির বিষয়ে টিপু মুন্সী বলেন, যুদ্ধের কারণে ভোজ্যতেলের দাম বেড়েছে, এমন কথা তিনি কখনো বলেননি। “প্রতি মাসেই তেলের দাম নির্ধারণ করা হয়। এখন বিশ্ববাজারে ভোজ্যতেলের দাম বেড়েছে,” বলেন তিনি।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
3,592FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles