শুক্রবার, আগস্ট ১২, ২০২২

বাংলাদেশে আরও বিনিয়োগ করতে চায় আরবরা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বিশেষ করে বাংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে সৌদি আরবের বৃহত্তর বিনিয়োগ কামনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার তিনি বলেন, আমি বাংলাদেশে সৌদি আরবের বিনিয়োগকে স্বাগত জানাই। সফররত সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদের সরকারি বাসভবন গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। সৌদি আরবের বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে বিদ্যমান সুযোগগুলো কাজে লাগাবেন বলে আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, “বাংলাদেশ বিনিয়োগকারীদের সহায়তা দিতে প্রস্তুত যার মধ্যে রয়েছে তাদের জন্য বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে নিবেদিত জমি বরাদ্দ করা,” তিনি বলেন, তার সরকার সারা দেশে ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করছে। শেখ হাসিনা সৌদি আরবের সাথে বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন- “অর্থনীতি, বাণিজ্য, বাণিজ্য, বিনিয়োগ, জ্বালানি, শিক্ষা, সংস্কৃতি এবং প্রতিরক্ষা সহ বহু ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা প্রসারিত হয়েছে এবং একীভূত হয়েছে”। বৈঠকে সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তার দেশের অনেক কোম্পানি বাংলাদেশের জ্বালানি খাতে বিশেষ করে নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। তিনি আরও বলেন, অনেক বাংলাদেশি শ্রমিক বিশ্ব অর্থনীতিতে অবদান রাখছেন। ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্ব এবং বাংলাদেশের প্রশংসনীয় অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন। বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের সম্পর্ককে “বন্ধুত্বের দৃঢ় বন্ধন” হিসেবে বর্ণনা করে তিনি বলেন- “এটি আগামী দিনে আরও শক্তিশালী হবে।” কেএসএ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তাদের অগ্রাধিকার হচ্ছে নতুন নতুন ক্ষেত্র অন্বেষণে আরও অর্থনৈতিক সহযোগিতা বাড়ানো।

বিভিন্ন বৈশ্বিক এজেন্ডায় বাংলাদেশের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করারও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মানুষের হৃদয়ে সৌদি আরবের একটি বিশেষ স্থান রয়েছে। শেখ হাসিনা সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ এবং ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান আল সৌদকে তার শুভেচ্ছা জানান। প্রধানমন্ত্রী মুসলিম উম্মাহর প্রতি অবদানের জন্য সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের প্রশংসা করেন, দুই পবিত্র মসজিদের রক্ষক। বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, অ্যাম্বাসেডর অ্যাট লার্জ এম জিয়াউদ্দিন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. জাভেদ পাটোয়ারী এবং বাংলাদেশে সৌদি রাষ্ট্রদূত এসা ইউসেফ এসা আল দুলাইহান উপস্থিত ছিলেন।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
3,434FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles