সোমবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২২

বেঙ্গল টাইগাররা ক্রিকেট ইতিহাসের কয়েকটি পাতা নতুন করে লিখল

আইসিসি ওডিআই ক্রিকেট লিগ
বাংলাদেশ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
২৩ শে মার্চ ২০২২-এ সুপার স্পোর্টস পার্ক সেঞ্চুরিয়ানে তৃতীয় ওডিআই খেলা
বাংলাদেশ ১৫৭/১ (তামিম ইকবাল ৮৭*, লিটন কে দাস ৪৮, সাকিব আল হাসান ১৮*) দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৩৭ ওভারে ১৫৪ অলআউট করেছে (জেনেমান মালান ৩৯, কেশব মহারাজ ২৮, ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস ২০, তাসকিন আহমেদ ৫/৩৫, সাকিব আহমেদ ৫/৩৫) আল হাসান ২/২২) ৯ উইকেটে
ম্যাচসেরা- তাসকিন আহমেদ
ম্যান অব দ্য সিরিজ- তাসকিন আহমেদ

আমাদের গৌরবময় মুক্তিযুদ্ধের মাসে বেঙ্গল টাইগাররা দক্ষিণ আফ্রিকায় শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ওডিআই সিরিজে ২-১ ব্যবধানে জয়ী হওয়ার মুহূর্ত জাতির জন্য উপস্থাপন করেছে। বাংলাদেশ তৃতীয় ম্যাচে ৯ উইকেটে বিশাল ও সুদর্শন সিরিজ জিতে নেয়। এর আগে ২০ বছরে দক্ষিণ আফ্রিকায় হোম দলের বিপক্ষে কোনো ফরম্যাটে একটি ম্যাচও জিততে পারেনি বাংলাদেশ। এই সিরিজ জয়ের মধ্য দিয়ে মার্চ মাসে মুক্তিযুদ্ধের ৫১ বছর পূর্তি থেকে মাত্র ৩ দিনেই ক্রিকেট ইতিহাসের কয়েকটি পাতা নতুন করে লিখল বাংলাদেশ।

অদম্য সাহস এবং আত্মবিশ্বাস দেখিয়েছে যে বাংলাদেশ কোন ম্যাচের প্রথম এবং দ্বিতীয় ওয়ানডে বিশাল ব্যবধানে হেরে যাওয়ার পর জোয়ার উল্টে দিয়েছে তা আমাদের পরবর্তী বছরের জন্য গর্ব করে তুলবে। ২০২২ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ প্রথম টেস্টে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নদের অবাক করে নিউজিল্যান্ডে প্রথম জয়ের রেকর্ড করে। এখন তারা দক্ষিণ আফ্রিকায় একটি নতুন সীমান্ত জিতেছে। তৈরি করা গতি তাদের ২ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ জয়ের দিকে নিয়ে যেতে পারে যা দক্ষিণ আফ্রিকার কিছু নেতৃস্থানীয় খেলোয়াড় আইপিএলে খেলার জন্য এড়িয়ে যাবে।

একই ভেন্যুতে খেলা প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ ৩৮ রানে জিতেছে, দ্বিতীয় ম্যাচে ৭ উইকেটে হেরেছে। সাহসী ও নির্ভীক ক্রিকেট খেলে গতকাল ঘরের দলকে ৯ উইকেটে হারিয়েছে তারা। স্পিডস্টার তাসকিন ৫/৩৫ তুলে নিয়ে প্রোটিন ব্যাটিংয়ের মেরুদণ্ড ভেঙে দেন। ক্যাপ্টেন (৮৭*) এবং লিটন কে দাস (৪৮) রেকর্ড গড়ে প্রথম উইকেট জুটিতে ১২৭ রানের জুটি গড়ে জয়ের ভিত গড়ে দেন। সুপার স্টার সাকিব জয়ের রান তুলে তা বন্ধ করে দেন। সিরিজ জয় ছিল দলের এ-জেড এর সমন্বিত অবদান। ১২০ পয়েন্ট নিয়ে আইসিসি ওয়ানডে লিগের শীর্ষে রয়েছে বাংলাদেশ। ভারতে ২০২৩ সালের আইসিসি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সরাসরি খেলার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছে। আফিফ, ইয়াসির, মেহেদি মিরাজ এবং শরিফুলের মতো খেলোয়াড়দের সাথে চারটি বিশ্বমানের সিনিয়রের সাথে অবদান রেখে বাংলাদেশ ২০২৩ সালের আইসিসি বিশ্বকাপের জন্য ডার্ক হর্স হিসাবে পরিণত হয়েছে।

এর আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বিধ্বস্ত করে বাংলাদেশ। তবে সফরে পূর্ণ শক্তির উচ্চতর দলের বিপক্ষে আগে কখনোই নয়। তাছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকা মাত্র কয়েক মাস আগে ব্যাপকভাবে ভারতকে সাদা করে দিয়েছে। তামিম, সাকিব এবং মুশফিক যারা ২০০৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বিশ্বকাপ জয়ে অংশ নিয়েছিলেন তারা গতকাল ঐতিহাসিক জয়ের জন্য পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন। এই ওডিআই দলটি সমস্ত ফ্রন্ট কভার করে সম্ভবত সবচেয়ে শক্তিশালী দল হিসাবে পরিণত হচ্ছে। তদুপরি, তাদের সূক্ষ্ম সুর করার জন্য তাদের এখন একটি শক্তিশালী প্রোটিন দল রয়েছে।

সম্ভবত গতকাল টস হেরে ব্যাট করাটা বাংলাদেশের জন্য আশীর্বাদ ছিল। ফ্ল্যামবয়েন্ট মালান এবং কুইন্টন ডি কক বর্বর পাল্টা আক্রমণ শুরু করে। কিন্তু মিরাজের হাতে ডি কক ফেরত পাঠানোর সাথে সাথে তাসকিন প্রচন্ড গতি ও অস্বস্তিকর বাউন্স দিয়ে প্রোটিন টপ অর্ডারকে নাড়া দেয়। সাকিবও তার কৃপণ আঁটসাঁট স্পিন দিয়ে দলে যোগ দিয়েছেন। রয়্যাল বেঙ্গলের গর্জনের মতো মাঠে নেমেছে দলটি। দক্ষিণ আফ্রিকাকে 154 তে সীমাবদ্ধ রেখে ক্রিকেট ইতিহাস পুনর্লিখনের সেই সুবর্ণ সুযোগ পেল। তামিম ও লিটন কিছু দুশ্চিন্তাগ্রস্ত মুহূর্ত পর গৌরবময় স্ট্রোক খেলে লক্ষ্যের দিকে হেঁটে যান। বিশেষ করে তামিম ছিলেন বিদ্রোহী মেজাজে।

পিছিয়ে নেই লিটনও। জয়ের দেখা পেয়ে লিটন আউট হন আরও একটি হাফ সেঞ্চুরি করতে গিয়ে ৪৮ রানে। তার ব্যাট থেকে উইনিং স্ট্রোক আসাটাই উপযুক্ত ছিল। এই মুহূর্তে তার পরিবারের বেশ কয়েকজন সদস্য অসুস্থ এবং হাসপাতালে ভর্তি আছেন জেনেও তিনি ম্যাচ খেলার জন্য ফিরে থাকার প্রতিশ্রুতি না দেখান।৫১ তম স্বাধীনতা দিবস থেকে ৭২ ঘন্টা বাকি আছে আবার জাতিকে গর্বিত করার জন্য টিম টাইগারদের শুভেচ্ছা।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
3,597FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles