শনিবার, অক্টোবর ২৩, ২০২১
সর্বশেষঃ
*মেক্সিকোতে মাদকচক্রের দুই পক্ষের গোলাগুলিতে নিহত দুই পর্যটক*কিমকে চিঠি দিলেন চিনপিং, সম্পর্ক জোরদারের প্রতিশ্রুতি*নতুন বাজারের সন্ধান করতে হবে বিদেশে*যেকোনো অর্জন-সাফল্যকে বিতর্কিত করা বিএনপির স্বভাব – ওবায়দুল কাদের*পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে ক্লাসের সংখ্যা বাড়বে – শিক্ষামন্ত্রী*মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে বিপুল সৈন্য সমাবেশ মানবাধিকার বিপর্যয়ের আশঙ্কা জাতিসংঘের*ব্যক্তিগত দ্বন্দ্ব থেকে পীরগঞ্জের হামলা ও অগ্নিসংযোগের সূত্রপাত – র‍্যাব*দেশে কোনো ধর্মের-বর্ণের মানুষের মধ্যে পার্থক্য করা হয় না – পররাষ্ট্রমন্ত্রী*রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হামলায় নিহতের ঘটনায় আটক ৮*সেই বিমান ছিনতাইচেষ্টা নিয়ে সিনেমা নায়িকা ববি

মুসলিম নারীদের নিয়ে নিউজিল্যান্ডের স্কুলে বিশেষ উদ্যোগ

মুসলিম নারীদের ভূমিকা সমাজে অনস্বীকার্য। আর তাই মুসলিম নারীদের অবদান সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে জানাতে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে নিউজিল্যান্ডের শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ইসলাম বিদ্বেষ ও মুসলিম নারী সম্পর্কে ভুল তথ্য মোকাবেলায় দেশটির ওয়েলিংটন শহরের মাধ্যমিক স্কুলে একটি প্রোগ্রাম চালু করা হয়েছে। ইসলাম সম্পর্কে মানুষের ভুল মনোভাব বদলাতে দেশটির দি ইসলামিক উইম্যানস কাউন্সিল এ প্রোগ্রামটি চালু করে। সংগঠনটির মুখপাত্র আনজুম রহমান জানান, সমাজের মানুষ ধীরে ধীরে উদার মনে হলেও এখনও অনেক মানুষ বিভাজনে বিশ্বাস করেন।  রহমান বলেন, অনেক মানুষ মনে করেন যে মুসলিম নারীদের মগজ ধোলাই করা হয়েছে, তারা নির্যাতিত ও নিপীড়িত। অথচ আপনারা জানেন, আমাদের সমাজে নারীরা বড় বড় অবদান রেখে অনেক জনপ্রিয় হচ্ছেন।  এক বিবৃতিতে আনজুম রহমান বলেন, ‘তাই আমরা ১৩ জন মুসলিম নারীরা জীবনী রচনা করেছি। দৈনন্দিন জীবনে তাঁরা কী কী দায়িত্ব পালন করেন ও তাঁদের জীবনের সুন্দর গল্প নিয়ে একটি প্রোগ্রাম তৈরি করা হয়েছে।’ এর মাধ্যমে মুসলিম নারীদের ভূমিকা নিয়ে মানুষের ভুল ধারণা ভাঙবে বলে বিশ্বাস করেন রহমান। মুসলিম নারীদের ব্যাপক অবদান সম্পর্কে সমাজে সচেতনতা বাড়বে বলে আশা প্রকাশ করেন আনজুম বলেন, ‘আমাদের অনেক নারী আইনজীবী, বিচারক, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক, শিশু পরিচর্যা কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়ক ও নারী শরণার্থীর দায়িত্বশীল ছাড়াও অনেক ধরনের দায়িত্ব পালন করেন নারীরা।  মুসলিম নারীদের ব্যাপক অবদান সম্পর্কে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে একটি পরিকল্পনা প্রস্তাবনা পেশ করে দি ইসলামিক উইম্যানস কাউন্সিল। পরবর্তীতে প্রস্তাবনা বাস্তবায়নে মন্ত্রণালয় সহায়তা করে।  পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কাজ অনেক আগ থেকে শুরু হয়েছিল। কিন্তু ২০১৯ সালের মসজিদ হামলার ঘটনায় তা থেমে যায়। অতঃপর প্রোগ্রামটি গত বুধবার ওয়েলিংটন শহরে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়।  নিউজিল্যান্ডের মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোর সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রধানদের কাছে প্রোগ্রামের বিষয় সম্পর্কে ইমেইল করে জানানো হয়েছে। সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও সুবিচার বিষয়ক বিভিন্ন প্রকল্পেও তা কাজে লাগানো যাবে।  নিউজিল্যান্ডে মোট জনসংখ্যার মাত্র এক ভাগ মুসলিম। গত শতাব্দির শুরু থেকে ৬০-এর দশকে দক্ষিণ এশিয়া ও পূর্ব ইউরোপ থেকে অভিবাসী মুসলিমরা আসে। তাছাড়া ৭০-এর দশকে ভারতীয় ফিজির আগমনের মাধ্যমে অধিকাংশে আগমন। ১৯৫৯ সালে সর্বপ্রথশ দেশটিতে ইসলামি সেন্টার প্রতিষ্ঠিত হয়। দেশটিতে বর্তমানে অসংখ্য মসজিদ ও ইসলামিক স্কুল আছে। 

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles