মঙ্গলবার, মে ১১, ২০২১
সর্বশেষঃ
*সর্বোচ্চ মৌসুমের বৃষ্টিপাত ঢাকায় , সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া*করোনাভাইরাসের উপস্থিতি মিললো: দেশিও টাকায়*নাগরিকদের আমিরাতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা: বাংলাদেশসহ চার দেশ*খালেদা জিয়া দোষ স্বীকার করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ক্ষমা চাইলেই বিদেশ যাওয়ার অনুমতি আইনি সুযোগ রয়েছে: আনিসুল হক*বিদেশে নেয়ার আবেদন, খালেদাকে রাজনীতি থেকে ‘মাইনাস’ করে*মেট্রো রেলের পরীক্ষামূলক যাত্রা: ২৪ মের মধ্যে*করোনায় দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৮ জনের মৃত্যূ শনাক্ত ১ হাজার ৫১৪ জন*প্রধানমন্ত্রী ও সেতুমন্ত্রীর শোক: মেরাজ উদ্দিন মোল্লার মৃত্যুতে*আগামীকাল ঈদের চাঁদ দেখার নির্দেশনা, সৌদি আরব*রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৩১ জন

“তাওবা” বদলে দেয় জীবন

তাওবা মুমিনদের জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সাহাবিদের অন্যতম বৈশিষ্ট্য ছিল এটি। আল্লাহর কাছে দোয়া করতেন, ‘আল্লাহ, আমাদের হালাল কাজের তাওফিক দাও। হারাম কাজ থেকে বিরত রাখো। তোমার আনুগত্যের তাওফিক দাও।’

অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের পাপ থেকে অন্তরের পাপ বেশি ভয়ানক। তা মনে “কুপ্রভাব” ফেলে। অন্তরের পাপাচার হলো অহংকার ও গর্ব করা, আত্মপ্রবঞ্চনা ও মোহাবিষ্ট হওয়া, লৌকিকতা ও প্রদর্শনেচ্ছা, মানুষের প্রতি খারাপ ধারণা পোষণ করা, হিংসা ও বিদ্বেষ লালন করা। এ ধরনের পাপ রোজার প্রাণ নষ্ট করে দেয়। আগুন যেভাবে কাঠ পুড়িয়ে ছাই করে ফেলে, ঠিক তেমনি অন্তরের পাপ মানুষের ভালো কাজ নষ্ট করে ফেলে। হাদিসে ইরশাদ হয়েছে, ‘যে ব্যক্তির মাঝে বিন্দু পরিমাণ অহংকার আছে সে কখনো জান্নাতে প্রবেশ করবে না।’ (মুসলিম)

মুমিনরা সাধারণ আদম সন্তান, পাপপ্রবণ। কিন্তু যখনই তারা মাটির আকর্ষণ থেকে মুক্ত হয়, তখনই আল্লাহর কাছে তাওবা করে। তাঁর কাছে ফিরে যায়। আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘যখনই শয়তানের কোনো দল তাদের কুমন্ত্রণা দেয়, তখনই তারা আল্লাহকে স্মরণ করে এবং তাদের চোখ খুলে যায়।’ “(সুরা আরাফ, আয়াত : ২০১)”

পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছে, ‘হে আদম সন্তান, তোমরা শয়তানের উপাসনা করো না। নিশ্চয় সে সুস্পষ্ট শত্রু। তোমরা আমারই ইবাদত করো। আর এটাই সরল-সঠিক পথ।’ “(সুরা ইয়াসিন, আয়াত : ৬০-৬১)”

পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছে, মুমিনরা কখনো প্রবৃত্তির তাড়নায় পাপ করলেও শয়তান ও তার দলের কাছে নতি স্বীকার করে না; বরং তাদের মা-বাবা আদম-হাওয়ার মতোই বলে ওঠে, ‘হে আমাদের প্রভু, আমরা নিজেদের ওপর অত্যাচার করেছি। আপনি যদি আমাদের ক্ষমা না করেন, আমাদের ওপর দয়া না করেন, তাহলে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হবো।’ (সুরা আরাফ, আয়াত : ২৩)

পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছে, ‘যখন তারা কোনো গর্হিত কাজ করে ফেলে কিংবা নিজেদের ওপর অত্যাচার করে সঙ্গে সঙ্গে তারা আল্লাহর স্মরণ করে। তারপর নিজেদের পাপাচারের জন্য ক্ষমা চায়। আর আল্লাহ ছাড়া কে ক্ষমা করতে পারে? তারা জেনে-শুনে আর পাপের পুনরাবৃত্তি করে না। (সুরা : আলে ইমরান, আয়াত : ১৩৫)

মহান আল্লাহ আমাদের সবাইকে প্রকৃত মুমিন হয়ে গুনাহমুক্ত জীবন গড়ার তাওফিক দান করুন। আমিন

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

21,943FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles