জাপান থেকে মেট্রোরেলের যে ট্রেন আসছে

মেট্রোরেলের ট্রেন জাপানের কোবে বন্দর থেকে বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে। জাপানের আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা) আজ বৃহস্পতিবার তাদের ফেসবুক পাতায় ট্রেন সেটটির একটি ছবিও প্রকাশ করেছে। জাইকা বাংলাদেশ বলেছে, ২৪ সেট ট্রেনের মধ্যে প্রথম সেটটি বুধবার রাতে জাপানের কোবে বন্দর থেকে জাহাজে উঠেছে। শিগগিরই বাংলাদেশে এসে পৌঁছাবে। ঢাকায় মেট্রোরেল নির্মাণের দায়িত্বে রয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত কোম্পানি ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। প্রতিষ্ঠানটির সূত্র জানায়, এক সেট ট্রেনবাহী জাহাজটি মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস করা হবে। সেখান থেকে ট্রেন সেটটি ঢাকার উত্তরায় মেট্রোরেলের জন্য নির্মিত ডিপোতে পৌঁছার কথা আগামী এপ্রিলের শেষের দিকে। এরপর ডিপোর ভেতর প্রাথমিক চলাচল শুরু হবে, চলবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা। ডিপোতে প্রথম দফার পরীক্ষা শেষে মূল লাইনে পরীক্ষামূলক চলাচল করবে। সূত্র আরও জানায়, জাপানে ইতিমধ্যে পাঁচ সেট মেট্রোরেলের ট্রেন তৈরি হয়ে গেছে। সব মিলিয়ে মেট্রোরেলের জন্য ২৪ সেট ট্রেন তৈরি হচ্ছে। প্রতি সেটে ছয়টি করে বগি। জাইকার অর্থায়নে ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের মেট্রোরেলের লাইন নির্মিত হচ্ছে রাজধানীর উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ২২ হাজার কোটি টাকা। জানুয়ারি পর্যন্ত প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি প্রায় ৫৭ শতাংশ। তবে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার অংশের কাজের অগ্রগতি ৮০ শতাংশের মতো। এই অংশে উড়ালপথ তৈরির কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। রেললাইন বসেছে চার কিলোমিটার পথে। স্টেশন নির্মাণ ও অন্যান্য কাজও চলছে। তবে আগারগাঁও থেকে মতিঝিল অংশের কাজ কিছুটা পিছিয়ে আছে। এই পথে কাজ হয়েছে ৫১ শতাংশের কিছু বেশি। ডিএমটিসিএল সূত্র আরও জানায়, মেট্রোরেলের দ্বিতীয় সেট জাপান থেকে রওনা দেবে আগামী ১৫ এপ্রিল, উত্তরায় তা পৌঁছানোর কথা ১৬ জুন। তৃতীয় সেটটি রওনা করবে ১৩ জুন, ঢাকায় আসার সম্ভাব্য তারিখ ১৩ আগস্ট। বাকি দুই সেট ট্রেনও চলতি বছরের মধ্যেই বাংলাদেশে আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

  • ২৪ সেট ট্রেনের মধ্যে প্রথম সেটটি বুধবার রাতে জাপানের কোবে বন্দর থেকে জাহাজে উঠেছে। শিগগিরই বাংলাদেশে এসে পৌঁছাবে।

সরকারের সূত্র বলছে, মেট্রোরেল উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত একবারেই চালু হবে, নাকি দুই ভাগে যাত্রী পরিবহন শুরু হবে—এটা নিয়ে নীতিনির্ধারকদের মধ্যে মতদ্বৈততা আছে। কারও কারও মত হচ্ছে, উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত আগে চালু হোক। এ ক্ষেত্রে চালুর সম্ভাব্য তারিখ ধরা হয়েছে আগামী ১৬ ডিসেম্বর। তবে এর মধ্যে কাজ শেষ করা সম্ভব নয় বলেই মনে করছেন প্রকল্পসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। কারও মত, পুরোটা একসঙ্গেই চালু করা ভালো। কারণ, আগারগাঁও পর্যন্ত আগে চালু হলে যাত্রীদের অন্যত্র যাওয়ার জন্য যে বাস বা অন্য ব্যবস্থা দরকার, তা এখন নেই। এ ছাড়া কারিগরি কিছু জটিলতাও হতে পারে। এ ক্ষেত্রে উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত পুরোটা একবারে চালু করার সম্ভাব্য সময়সীমা ২০২২ সালের ডিসেম্বর। তবে উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবে (ডিপিপি) প্রকল্পের মেয়াদ ধরা হয়েছে ২০২৪ সালের জুন পর্যন্ত।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

21,961FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles