সর্বশেষঃ
*ইসরায়েল জাতিসংঘের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান*করোনায় দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ৪০ জন*ভারতে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪২০৫ জনের মৃত্যু*আবারও মামুনুল হকের ১৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত,পাঁচ মামলায়*মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সহসভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন মাতুককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ*ফেরিতে যাত্রীরচাপে ৫ জন নিহিত, গুরুতর আহত বেশ কয়েকজন*তৌহিদ আফ্রিদি চাঁদ রাতের নাটকে*বঙ্গবন্ধু কন্যা মানবিক বলেই দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা নেওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন*গাজীপুরে মাইক্রোবাস ধাক্কা দিলেন র‍্যাবের গাড়িকে, র‍্যাব সদস্যসহ ২ জন নিহত*আরো ‘সিনোফার্ম’ টিকা আনার চেষ্টা চলছে চীন থেকে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক

ক্ষুধা নেই তবুও বেশি খাচ্ছেন ৬ টিপসেই মিলবে সমাধান

সকালে ঘুম উঠেই আপনি সারাদিনের খাওয়া আর ব্যায়ামের পরিকল্পনা করে ফেললেন। সেই অনুপাতে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলল। কিন্তু ঠিক সন্ধ্যার পর যেয়ে আপনার ফাস্ট ফুড বা মিষ্টি খাবার খাওয়া প্রবণতা বাড়তে পারে। এ সমস্যা আপনার একার না অনেকের ক্ষেত্রেই এমন ঘটতে পারে। দুর্ভাগ্যক্রমে আমাদের মধ্যে যখন মানসিক চাপ বাড়ে তখন আমরা খাবারেই সমাধান খুঁজি। চিন্তা করি আর কিছু না হোক খাবার আমাদের কিছুটা হলেও শান্তি দেবে। এতে করে পরবর্তীতে দেখা যায় ওই খাওয়ার বিষয়টি অভ্যাসে পরিণত হয়ে যায়। তবে এ বিষয় থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

  • আপনার মন মেজাজ, খাবার ও ওজনের মধ্যে সম্পর্ক

আপনি যখনই কোন বিষয় নিয়ে চিন্তায় থাকেন বা আপনার মন মেজাজ খারাপ থাকে তখনই দেখা যায় খাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। আর বেশিরভাগ খাবার দেখা যায় অস্বাস্থ্যকর।  এর অর্থ আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণের যে লক্ষ্যে আপনি ছিলেন তার থেকে অনেকটা সরে আসলেন। শুরুতে খাবার খেয়ে আপনার ভালো লাগলেও পরবর্তীতে অপরাধবোধে ভুগবেন। কিন্তু পরবর্তীতেও আপনি যদি মানসিক অবসাদে ভোগেন তখনও দেখা যাবে আপনি খাওয়াকে বেছে নিচ্ছেন।

  • মুক্তির উপায়-

ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এ থেকে মুক্তির উপায় আপনি পাবেন হাতের কাছেই।

  • খাওয়ার ডায়েরি রাখা-

শুনতে প্রথমে অদ্ভুত লাগতে পারে যে আপনি খাওয়ার জন্য ডায়েরি রাখছেন। খেয়াল করুন যে আপনি কী খান, আপনি কতটুকু খান, কখন খাবেন, খাওয়ার সময় আপনার মনের অবস্থা কেমন এবং আপনি কতটা ক্ষুধার্ত আছেন। এতে করে আপনি সহজে পদক্ষেপ নিতে পারবেন কী করা উচিত।

  • মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণ করুন-

আপনার মানসিক খাওয়ার ধরণের পিছনে যদি মানসিক চাপ কারণ হয় তাহলে যোগব্যায়াম,মেডিটেশন বা গভীর শ্বাস প্রশ্বাস নেওয়ার চেষ্টা করুন।

  • ক্ষুধার্থ কি না পরীক্ষা করুন-

শুনতে এটি উদ্ভট বলে মনে হচ্ছে। তবে আপনার ক্ষুধা শারীরিক বা মানসিক হলে নিজেই পরীক্ষা করে দেখুন? হিসেব করে দেখুন আপনি কয়েক ঘন্টা আগে খেয়েছেন। এতে করে দেখা যাবে আপনি সম্ভবত ক্ষুধার্ত নাও হতে পারেন। কিন্তু তারপরও আপনার আবেগ আপনাকে চকলেটের দিকে নিয়ে যেতে পারে। কিন্তু ক্ষুধা যেহেতু লাগেনি এই ভেবে খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।  

  • একঘেয়েমি দূর করুন-

একঘেয়েমির কারণে আপনি প্রচুর খাবার খেতে থাকেন। কিন্তু খাবারের পরিবর্তে আপনার মন ভালো করতে আপনি গান শোনা, বই পড়া, কোন বন্ধুর সাথে দেখা করতে পারেন।

  • জাঙ্ক ফুড বাসা থেকে সরানো

শুনতে কিছুটা খারাপ মনে হলেও নিজের ভালোর জন্য আপনি বাসায় কোন জাঙ্ক ফুড রাখবেন না। বাড়িতে না এসব অস্বাস্থ্যকর না থাকলে আপনার খাওয়ার প্রশ্নটিও তৈরি হবে না।

  • চিকিৎসকের সাহায্য নিন

আপনি যদি দেখেন  যে এই কৌশলগুলোর কোনওটিই কাজ করছে না, তবে সমস্যাটি আপনি যা ভাবছেন  তার চেয়ে গুরুতর হতে পারে। আপনি চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করতে বা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারেন।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

21,946FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles