বুধবার, জুন ২৩, ২০২১

করোনা আতঙ্কের মধ্যে কাল শুরু হচ্ছে সংসদ অধিবেশন

করোনার টিকা (ভ্যাকসিন) নেওয়ার পরও অনেকেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। ঘটছে মৃত্যুও। তাই টিকা নেওয়ার পরও সংসদ অধিবেশনে প্রবেশের ক্ষেত্রে করোনা নেগেটিভ সনদ থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। সংসদ সদস্যদের করোনা নেগেটিভ সনদের মেয়াদ থাকবে ৪৮ ঘন্টা। আর করোনাভাইরাস সংক্রমণ উর্ধ্বগতির কারণে আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) শুরু হতে যাওয়া এই অধিবেশনে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে অনুসরণ করা হবে। এই অধিবেশন সংক্ষিপ্ত হবে, যা সর্বোচ্চ ৫ থেকে ৬ দিন চলতে পারে। অধিবেশনে পাশ হওয়ার অপেক্ষায় ১০টি বিল। সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, করোনাভাইরাস সংক্রমণ উর্ধ্বগতির মুহূর্তে একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বাদশ অধিবেশন বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) বসবে। সাধারণত কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে অধিবেশনের মেয়াদ ঠিক করা হলেও করোনা মহামারির কারণে গত পাঁচটি অধিবেশনের মতো এবারো ওই কমিটির বৈঠক হচ্ছে না। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলাপ করে স্পিকার অধিবেশনের মেয়াদ ও কার্যসূচি চূড়ান্ত করবেন। তবে জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে বাজেট অধিবেশন থাকায় এই অধিবেশন আগামী সপ্তাহেই শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে। অধিবেশন চলাকালে সংসদ ভবনে প্রবেশের ক্ষেত্রে করোনা নেগেটিভ সনদ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। আর অধিবেশন কক্ষে প্রবেশের ক্ষেত্রে করোনা নেগেটিভ সনদের মেয়াদ থাকবে ৪৮ ঘণ্টা। এরপর আবারো টেস্ট (নমুনা পরীক্ষা) করাতে হবে। করোনা টিকা গ্রহণকারীদেরও টেস্ট করাতে হবে। টিকা গ্রহণকারী সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরীর করোনায় মৃত্যু এবং অনেকেই আক্রান্ত হওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার পরও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) আইসিইউতে চিকিৎসাধীন আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি এবং সাবেক আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরু। টিকা নেওয়ার প্রায় দুই মাস পর করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন হবিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মজিদ খান। টিকা নেওয়ার দেড় মাস পর করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী (৬৭), তাঁর স্ত্রী রেবেকা সুলতানা সাজু (৬২) এবং মেয়ে কানিজ ফাতিমা চৈতী (৪০)। সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ ও তাঁর স্ত্রী বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত। এছাড়া  চলতি মাসে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল, ফেনী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী এবং মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া) আসনের সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ। জাতীয় সংসদের হুইপ পঞ্চানন বিশ্বাস কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গত ৫টি অধিবেশনের মতো এবারের অধিবেশনও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে পরিচালনা করা হবে। প্রতিটি কার্যদিবসে ৭০-৮০ জন সংসদ সদস্যের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হবে। তবে নতুন নির্দেশনার কারণে অধিবেশনে যোগ দিতে একাধিকবার টেস্ট করানোর প্রয়োজন পড়বে।’ পঞ্চানন বিশ্বাস আরো বলেন, ‘করোনা ঝুঁকি এড়াতে আগের অধিবেশনগুলোর মতো মাঝখানে গ্যাপ দিয়ে দিয়ে আসন বিন্যাস করা থাকবে। সংসদ অধিবেশন চলাকালে দায়িত্বরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের করোনাভাইরাস পরীক্ষা করতে হবে।’ এদিকে সংসদ অধিবেশনকে সামনে রেখে জাতীয় সংসদের মেডিক্যাল সেন্টারের দ্বিতীয় তলায় করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার (করোনা টেস্ট) কার্যক্রম শুরু হয়েছে। কিন্তু সেখানে চলছে চরম অব্যবস্থাপনা। গত সোমবার সংসদ মেডিক্যাল সেন্টারে গিয়ে ছোট্ট ঘরে অর্ধশতাধিক মানুষের ভিড় দেখা যায়। সেখানে সকাল ১০টা থেকে নমুনা পরীক্ষা  শুরু হয়েছে। মন্ত্রী, এমপি থেকে শুরু করে সংসদের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সেখানে নমুনা দিচ্ছেন। কিন্তু সেখানে কোনো শৃঙ্খলা নেই। এমপিদের জন্য আলাদা দুটি চেয়ার রাখা হয়েছে। আর অন্যদের জন্য একটি। সংসদ সদস্যরা আসার সঙ্গে সঙ্গে করোনা টেস্ট করানো হচ্ছে। তবে বিপত্তি ঘটছে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ক্ষেত্রে। তাঁদেরকে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। এ নিয়ে মাঝে মধ্যে হট্টগোলও চলছে। করোনা স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ তো দূরের কথা, কেউ কেউ ঠেলাঠেলি করে এমপিদের ওপর পড়ছেন। হট্টগোল ও ঠেলাঠেলির কারণে এমপিদের চরম বিরক্তি প্রকাশ করতে দেখা যায়। দীর্ঘ লাইনের পেছনে এমপিদের দু’টি চেয়ার রাখা হলেও মনিটরিং করার সুব্যবস্থা নেই। অনেকে সংসদ সদস্যদের চিনতে না পারায় তাদের সঠিক মূল্যায়ন করা হচ্ছে না। দৌড়ে এসে কানের কাছে জিজ্ঞেস করছেন স্যার আপনার বয়স কত? এরকম প্রশ্নে বিরক্ত হন সংসদ সদস্যরা। আবার কর্মচারী ভেবে লাইনে দাঁড়াতে বলা হচ্ছে। এ বিষয়ে কথা বলতে চাইলে চরম বিরক্তি প্রকাশ করেন মেডিক্যাল সেন্টারের পরিচালক ডা. মাহমুদা খানম সিদ্দীকা। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী নমুনা নেওয়া হচ্ছে। এই নমুনা পরীক্ষার ফল ৪৮ ঘণ্টা কার্যকর থাকবে। অধিবেশন শেষ না হওয়া পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ চলবে।’ সেখানে কথা হয় সাবেক হুইপ শহীদুজ্জামান সরকার ও সংসদ সদস্য মো. আক্তারুজ্জামান বাবুর সঙ্গে। তাঁরা জানান, আগে অধিবেশনের আগে একবার নমুনা পরীক্ষা করালে হয়েছে। নতুন নির্দেশনার কারণে এই অধিবেশনে একাধিকবার করাতে হবে। বিল পাস ছাড়াও এই অধিবেশনে স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি (সুবর্ণজয়ন্তী) উপলক্ষে সাধারণ আলোচনা হতে পারে। অধিবেশনের প্রথম দিনে সংসদ সদস্য মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরীর মৃত্যুতে সংসদে শোক প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা শেষে অধিবেশন মূলতবি করা হবে। অধিবেশনটি ৭ এপ্রিল পর্যন্ত চলতে পারে।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles