বুধবার, আগস্ট ৪, ২০২১

ঢাকায় যাত্রীর চেয়ে গাড়ির সংখ্যা বেশি

লকডাউনে দুদিন বন্ধ থাকার পর রাজধানী ঢাকাসহ দেশের সব সিটি করপোরেশন এলাকায় আজ বুধবার আবারও গণপরিবহণ চলাচল শুরু হয়েছেন। এতে ভোগান্তি কমেছে সাধারন মানুষের। স্বস্তি ফিরে এসেছে যাত্রীদের মধ্যে। গত কয়েকদিন অফিসগামী যাত্রীর তুলনায় পরিবহণ সংকট দেখা দিলেও আজকের চিত্র ভিন্ন। সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, গণপরিবহণের তুলনায় যাত্রী অনেক কম।আজ বুধবার সকাল থেকে দুপুর ১২টা নাগাদ গুলিস্তান, মতিঝিল, পল্টন, যাত্রাবাড়ী, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজার, বাংলামোটর, শাহবাগ ও প্রেসক্লাব এলাকা ঘুরে দেখা যায়, সড়কে জানবহনের সংকট নেই। গাড়িগুলোতে মাক্স পরে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রী ওঠানামা করানো হচ্ছে। তবে অনেক গাড়িতে স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা নেই।মোহাম্মদপুর-সাইনবোর্ড রুটের রজনীগন্ধা বাসের সুপারভাইজার রমজান মিয়া বলেন, ‘ঢাকা শহরে এখন জানবহনের তুলনাই যাত্রি কম। সকাল থেকে নির্দিষ্ট সিটেও লোক নেই।’সাইনবোর্ড-নবীনগর রুটের লাব্বাইক পরিবহণের যাত্রী মো. শফিক বলেন,আমি বাসে উঠেছি রায়েরবাগ এলাকা থেকে। দ্রুত কারওয়ান বাজার অফিসে এসে পৌঁছেছি। গত দুদিন ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়েছে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও রাইড শেয়ারিং মোটরসাইকেলের ও বিভিন্ন জানবহনের জন্য। যদিও জানবহন পাওয়া গেলেও ভাড়া বেশি। তবে বেশি ভাড়া নিলেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহণ চালু রেখে ভাল হয়েছেন।’মিরপুর-মতিঝিল রুটের বিকল্প পরিবহণের চালক সাব্বির আহমেদ বলেন, আজ সড়কে অন্য দিনগুলোর তুলনায় যাত্রী অনেক কম।তবে যাত্রীদের চাপ যদি কম থাকে তাহলে মালিকেরা সড়কে বাস কম নামাবেন। যাত্রী কম আর বেশিতে আমাদের কোনো সমস্যা নেই, মালিকের গাড়ি চালাই। গাড়ি চললেই আমাদের বেতন হবে।’একই রুটের শিকড় পরিবহণের যাত্রী জামাল হোসেন বলেন, আমার অফিস ফার্মগেট। আজ আমি সঠিক সময়ে অফিস পৌঁছাতে পারব ইনসাআলল্লাহ। বাসের জন্য বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়নি আজ। বাড়তি ভাড়া ও এক সিট ফাঁকা রেখে চলছে বাস। এক কথায় বলা যায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে জানবহন।’তবে যাত্রীদের একটি অভিযোগ উঠেছে, বাসে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দেওয়া হচ্ছে না। ফলে একই হাতল ও আসন ধরে যাত্রীদের ওঠানামা করতে হচ্ছে, ফলে ঝুকি বাড়ছে। এভাবে একজনের হাতের জীবাণু খুব সহজেই অন্যের হাতে চলে যাচ্ছে, এতে সংক্রমন বাড়ছে। রজনীগন্ধা বাসের যাত্রী মাহবুব হোসেন বলেন, সাধারণত বাসগুলো চলন্ত অবস্থায় যাত্রী ওঠানামা করে। ফলে সংক্রমণের ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও যাত্রীরা হাতল বা আসন ধরে ধরে ওঠানামা করতে বাধ্য হচ্ছে। কিন্তু চালক ও চালকের সহকারীরা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করেন না। আজ বুধবার থেকে ঢাকাসহ দেশের সব সিটি করপোরেশন এলাকায় জানবহন চালুর সরকারি সিদ্ধান্তের কথা জানান সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গতকাল মঙ্গলবার জানান, সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ঢাকা-চট্টগ্রামসহ সব সিটি করপোরেশন এলাকায় জানবহন চালু থাকবে। তবে দূরপাল্লার জানবহন চলবে না।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles