সোমবার, জুন ১৪, ২০২১

আগামী ১৩ জুন স্কুল-কলেজ খুলবে,‘পরিস্থিতি অনুকূলে’ থাকলে

করোনা মহামারির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চলমান ছুটি ১২ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে আগামী ১৩ জুন থেকে দেশের সকল প্রকার প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। পরিস্থিতি যদি অনুকূলে না থাকে, তাহলে হয়তো ভিন্ন সিদ্ধান্ত আসতে পারে।’

গতকাল বুধবার ‘চলমান ছুটি ও শিক্ষাসংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে’ এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী এসব সিদ্ধান্তের কথা জানান। তিনি বলেন, ‘প্রথমে যারা ২০২১ সালে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী রয়েছে, তারা সপ্তাহে ছয় দিনই ক্লাস করবে। যারা ২০২২ সালে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা দেবে, তাদেরও সপ্তাহে ছয় দিনই ক্লাস নেওয়ার চেষ্টা করব।’

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বলেছেন, ‘আমরাও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে একই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পরিস্থিতি ঠিক থাকলে আগামী ১৩ জুন থেকে সব ধরনের প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলে দেওয়া হবে। শুধু পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে ছয় দিন স্কুলে আনা হবে। আর প্রথম থেকে চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা প্রথম দিকে সপ্তাহে এক দিন আসবে।’

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার ব্যাপারে ডা. দীপু মনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়টি হয়তো টিকার ওপর খানিকটা নির্ভর করছে। শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার তথ্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) কাছে চাওয়া হয়েছে। তবে ধরে নেওয়া যায়, যেহেতু শিক্ষার্থীদের বয়স ৪০-এর নিচে, তাই বেশির ভাগই হয়তো টিকা নিতে পারেনি। তবে টিকা দেওয়া ছাড়াও আর কী বিকল্প উপায়ে বিশ্ববিদ্যালয় খোলা যায়, সেটা ইউজিসি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘মে মাসেই বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আবাসিক হল খোলায় বেশ চ্যালেঞ্জ আছে। এ জন্য আমরা টিকা প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করতে চেয়েছি। আমরা নতুন যে টিকা পাচ্ছি তাতে আবাসিক এক লাখ ৩০ হাজার শিক্ষার্থীকে অগ্রাধিকার দেওয়ার বিষয়টিতে প্রধানমন্ত্রীও সম্মতি জানিয়েছেন।’

দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরুর পর গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সরকার কয়েক দফা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালুর পরিকল্পনা করলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় দফায় দফায় ছুটি বাড়াতে হয়েছে। তবে দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণ বাড়ায় ২৯ মে পর্যন্ত সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছিল। গতকাল সেই ছুটি বাড়িয়ে ১২ জুন পর্যন্ত করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পর এই বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ৬০ কর্মদিবস ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ৮৪ কর্মদিবস ক্লাস নেওয়ার দুই সপ্তাহ পরে পরীক্ষা নেওয়া হবে।’

২০২২ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ব্যাপারে তিনি বলেন, আগামী বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষাও হবে সংক্ষিপ্ত পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে। এ জন্য এসএসসি পরীক্ষার জন্য ১৫০ দিন এবং এইচএসসি পরীক্ষার জন্য ১৮০ দিন ক্লাস করানোর জন্য সংক্ষিপ্ত পাঠ্যসূচি করা হয়েছে।

জেএসসি পরীক্ষার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘পরীক্ষা নেওয়ার মতো পরিস্থিতি থাকলে সেদিকে আমরা যাব। তা না হলে অ্যাসাইনমেন্টের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করব।’

নতুন কারিকুলামের ব্যাপারে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আগামী বছর থেকে নতুন কারিকুলামের বইয়ের পাইলটিং হবে। ২০২৩ সাল থেকে পর্যায়ক্রমে নতুন কারিকুলাম চালু হবে।’

দীপু মনি বলেন, ‘আমাদের যে পরিস্থিতি আছে মহামারির, তার সঙ্গে সম্প্রতি ঈদ যাত্রার কারণে কিছুটা সংক্রমণের হার বেড়েছে। আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের ঝুঁকিতে ফেলতে চাই না। সংক্রমণের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকলে বিশেষজ্ঞরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা বলেছেন। সে কারণে সবগুলো বিষয় বিবেচনা করেই ১২ জুন পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব গোলাম মো. হাসিবুল আলম প্রমুখ।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles