শনিবার, জুন ১৯, ২০২১

আল্লাহর পক্ষ থেকে সতর্কবার্তা ভূমিকম্প নিয়ে

সম্প্রতি সিলেটে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে পাঁচবার ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে। ভূমিকম্পের ভয়ানক কম্পনে  প্রাণ বাঁচাতে অনেকেই অফিস-আদালত ও বাসাবাড়ি থেকে বের হয়ে খোলা স্থান ও সড়কে অবস্থান নিয়েছিল।

ভূমিকম্প আল্লাহর পক্ষ থেকে সতর্কবার্তা : মূলত এ ভূমিকম্প মানুষের জন্য আল্লাহর পক্ষ থেকে এক সতর্কবার্তা। পৃথিবীতে যখন ব্যাপক হারে অশ্লীলতা, বেহায়াপনা, অন্যায়-অবিচার ও বাদ্যযন্ত্রের প্রকাশ ঘটবে তখন এ জাতি ভূমিকম্পের মুখোমুখি হবে। এক হাদিসে রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘এ উম্মত ভূমিকম্প, বিকৃতি এবং পাথরবর্ষণের মুখোমুখি হবে। (তিরমিজি, হাদিস : ২২১২)

ভয়াবহ ভূকম্পনের বিভীষিকা : আর ভূমিকম্পের বিভীষিকা কত মারাত্মক হবে কোরআনের এক আয়াতে আল্লাহ তাআলা তা তুলে ধরে বলেন, ‘হে মানব সকল, তোমরা ভয় করো তোমাদের রবকে। নিশ্চয়ই কিয়ামত দিবসের ভূকম্পন হবে একটা মারাত্মক ব্যাপার। যে দিন তোমরা তা প্রত্যক্ষ করবে, স্তন্যদায়ী মা তার দুগ্ধপোষ্য সন্তানের কথা ভুলে যাবে আর সব গর্ভবতীর গর্ভপাত হয়ে যাবে।’ (সুরা হজ, আয়াত : ১-২)।

ভূমিকম্পের আজাবে ধ্বংস হয়েছে যে জাতি : সালেহ ও শোয়াইব (আ.)-এর সম্প্রদায় তাদের নবীদের অবাধ্য ছিল। ভূমিকম্পের আজাব দিয়ে তাদের ধ্বংস করা হয়েছিল। তা ছাড়া এটি কিয়ামতের একটি অন্যতম আলামত। কিয়ামত যতই নিকটবর্তী হবে ভূমিকম্পের পরিমাণ বাড়তে থাকবে। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেছেন, কিয়ামত ততক্ষণ পর্যন্ত হবে না, যে পর্যন্ত না ইলম উঠিয়ে নেওয়া হবে,। (বুখারি, হাদিস : ১০৩৬)।

আরেক বর্ণনায় এসেছে, ইবনু হাওয়ালা (রা.) বলেন, রাসুল (সা.) আমার মাথা বা মাথার তালুতে হাত রেখে বলেন, হে ইবনে হাওয়ালা, যখন তুমি দেখবে যে বাইতুল মাকদিসে (সিরিয়ার) ভূমিতে খিলাফত প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, তখন মনে করবে অধিক ভূমিকম্প, মহা দুর্ঘটনা ও পেরেশানি সন্নিকটে। কিয়ামত তখন মানুষের এতই নিকটবর্তী হবে। (আবু দাউদ, হাদিস : ২৫৩৫)

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles